• chanakyabangla

আলু পেয়াজ তো মধ্যবিত্ত সাধ্যের বাইরে, রোগ প্রতিরোধ করতে গিয়ে বাড়ছে ডিমের দাম


আলু পেয়াজ তো মধ্যবিত্ত সাধ্যের বাইরে, রোগ প্রতিরোধ করতে গিয়ে বাড়ছে ডিমের দাম

চানক্য বাংলা ওয়েব ডেস্ক:কেন্দ্রীয় সরকারের নতুন কৃষি বিল এর ফলে এখন থেকে চাল, ডাল, আলু, পেঁয়াজ, তৈলবীজের মতো পণ্য আর অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের তালিকায় থাকছে না৷ ফলে এই পণ্যগুলির উৎপাদন, মজুতদারি, রফতনি ও বিক্রি এবং কোনও ক্ষেত্রে সরকারের কোনও নিয়ন্ত্রণ থাকছে না৷ নয়া এই আইন কার্যকর হতেই না হতেই  আলু, পেঁয়াজ, দামে চোখে জল আসছে সাধারণ জনতার৷ এবার সাধারণ জনতার পকেটে চাপ বাড়িয়ে রাতারাতি মহার্ঘ ডিম৷

করোনা মহামারীর হাত ধরে আয় কমেছে সাধারণ জনতার৷ তার উপর লাফিয়ে বাড়েছে আলু, পেঁয়াজের দাম৷ সরকারি হুঁশিয়ারি এখনও কান ঢোকেনি ব্যবসায়ীদের৷ মহামারীর সুযোগে ২২-২৫ টাকার আলু এখন ৪০ টাকার দোরগোড়ায়৷ পেঁজায় ৭০ টাকার কাছাকাছি৷ আলু পেয়াজ তো মধ্যবিত্ত সাধ্যের বাইরে, রোগ প্রতিরোধ করতে গিয়ে বাড়ছে ডিমের দাম।

করোনা ঠেকাতে শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে বলছেন চিকিৎসকরা৷ সস্তায় প্রোটিন পেতে সাধারণ জনতার ভরসা ছিল ডিম৷ করোনায়  ডিম চাহিদাও ছিল বেশি৷ জনতা বেশ বেশি ডিম কিনছে, বিষয়টি বুঝতে খুব একটা দেরি করেননি ব্যবসায়ীদের একাংশ৷ মহামারীর সুযোগে এবার সেই ডিমকেও মহার্ঘ বলে দেগে দেওয়া হয়েছে রাতারাতি৷ বাংলায় ভিন রাজ্য থেকে ডিম আসে৷ চাহিদার তুলনায় জোগান কমিয়ে বাজারে তৈরি হয়েছে নতুন বিড়ম্বনা৷ আর তাতেই চড়তে শুরু করেছে ডিমের দাম৷ গত এক সপ্তাহে বাংলার খুচরো বাজারে পোলট্রির মুরগির ডিমের দাম ৬ টাকা থেকে বেড়ে হয়েছে ৭ টাকা হয়ে গিয়েছে৷ হাঁসের ডিম ১২টাকার কাছাকাছি৷ পাইকারি বাজারে এই মুহূর্তে ১০০টি ডিমের দাম ৫৬২ টাকায় বিক্রি হচ্ছে৷ ১টি ডিমের দাম পাইকারি বাজারে বিক্রি হচ্ছে ৫টাকা ৬২ পয়সা৷ খুচরো বাজারে ডিম বিক্রি হচ্ছে ১৪ টাকা জোড়া৷।

রাজ্যে প্রতিদিন ডিমের চাহিদা থাকে প্রায় সাড়ে ৩ কোটি৷ বাংলায় মেরেকেটে ডিম উৎপাদিত হয় প্রায় ১ কোটি ৩০ লক্ষ৷ বাকিটা আসে ভিন রাজ্য৷ মূলত অন্ধ্রপ্রদেশ থেকে৷ গোটা দেশজুড়ে ডিমের চাহিদা বাড়তে থাকায় আগে দৈনিক গড়ে ২৫-৩০টি ডিমের গাড়ি ঢুকত বাংলায়৷ এখন তা কমেছে হয়েছে ১৮ থেকে ২০টি গাড়ি৷ বাইরে থেকে ডিমের গাড়ি কম আসায় ডিমের দাম আর কমবে না বলেই মনে করছেন ব্যবসায়ীরা৷