• chanakyabangla

কৈলাসের ঘোষণার পরেই চাঙ্গা মুকুল


কৈলাসের ঘোষণার পরেই চাঙ্গা মুকুল

চাণক্য বাংলা ওয়েব ডেস্ক:


মুকুল রায়কে পাশে রেখেই বাংলায় বিজেপি সরকার গঠন করবে বলে জানিয়েছিলেন বিজেপির কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়। তারপরেই ময়দানে নেমে পড়েছেন মুকুল রায়। লোকসভা নির্বাচনে বাঁকুড়া পুরুলিয়া জঙ্গলমহলের বিস্তীর্ণ এলাকায় ভারতীয় জনতা পার্টির সংগঠন শক্তিশালী হয়েছিল। কিন্তু বেশ কিছুদিন ধরে দেখা যাচ্ছে তাদের সেই সংগঠন আগের পরিস্থিতিতে নেই।


বাঁকুড়া পুরুলিয়া সহ জঙ্গলমহলের বিভিন্ন অংশে বিজেপির ভাঙ্গন শুরু হয়ে গিয়েছে। একাধিক বিজেপির হেভিওয়েট নেতৃত্ব কে ঘরে তুলেছে শাসক তৃণমূল। এলাকা থেকে দলে দলে বিজেপি ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে নেতাকর্মীরা যোগদান করা শুরু করেছে। তৃণমূলের নির্বাচন কৌশলী প্রশান্ত কিশোরের হাত ধরে বিজেপির শক্ত ঘাঁটিতে দলীয় নেতাকর্মীরা তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করছেন। সম্প্রতি রাজ্য বিজেপির অন্দরে দ্বন্দ্ব শুরু হয়ে গিয়েছে।


সেই দ্বন্দ্বকে কাজে লাগিয়েই শাসক তৃণমূল বিজেপির কর্মীদের দলে যোগদান করানোর প্রক্রিয়া শুরু করেছে। বিজেপি জঙ্গলমহল সংলগ্ন এলাকায় সাংগঠনিকভাবে আগের অবস্থায় নেই। এই পরিস্থিতিতে বিজেপির গণতন্ত্র বাঁচাও কর্মসূচিতে কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয় বলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে মুখ্যমন্ত্রী করেছেন মুকুল রায়। তাকে মুখ্যমন্ত্রী পদ থেকে সরাবেন মুকুল রায়। তৃণমূলে তাকে একসময় সেকেন্ড-ইন-কমান্ড বলা হত।


বিজেপিতে যোগদান করার পরে তার হাত ধরে তৃণমূল কংগ্রেস থেকে একাধিক বিধায়ক সাংসদ নেতা-নেত্রীরা বিজেপিতে যোগদান করেছেন। তাদের মধ্যে অনেকেই সাংসদ হয়েছেন অনেকেই সাংগঠনিক গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পেয়েছেন। যদিও মুকুল রায়কে বিজেপির পক্ষ থেকে সেই ধরনের কোনো গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব দেওয়া হয়নি। তবে পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি যে মুকুল রায়ের ওপর নির্ভর করছে সেটা কৈলাস বিজয়বর্গীয় বক্তব্য থেকেই বোঝা গিয়েছে।


বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ যখন বলছেন একুশে বিজেপিকে ক্ষমতায় আনার জন্য তিনি একাই যথেষ্ট তখন কৈলাস বিজয়বর্গীয় মুকুল রায়কে পাশে নিয়েই বিজেপি রাজ্য সরকার গঠন করবে বলে ডাক দিয়েছেন। কৈলাসের ব্ক্তব্যের পরেই মুকুল রায় জঙ্গলমহলে গিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের ভাঙ্গন ধরালেন। বিজেপির পক্ষ থেকে জানা গিয়েছে ঝাড়গ্রাম সাংগঠনিক জেলায় ৫১০ টি পরিবার তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করেছেন।


তাদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দিয়েছেন কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয় মুকুল রায় এবং সাংসদ কুনার হেমব্রম। বিধানসভা নির্বাচনের লক্ষ্যে তৃণমূল কংগ্রেস সংগঠনকে শক্তিশালী করার জন্য ময়দানে নেমেছে। বিজেপি থেকে বহু নেতাকর্মীরা তৃণমূলে যোগদান করেছেন। তবে এদিন মুকুল রায়ের হাত ধরে ফের তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে বেশ কিছু নেতাকর্মী বিজেপিতে যোগদান করলেন। কৈলাস বিজয়বর্গীয়র বক্তব্যের পরেই মুকুল রায়ের উদ্যোগে তৃণমূল থেকে বিজেপিতে নেতাকর্মীদের যোগদান করা যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করা হচ্ছে।