• chanakyabangla

গোরু পাচারকাণ্ডের তদন্তে অতিসক্রিয় সিবিআই, নজরে রাজ্যের তিন জেলা


গোরু পাচারকাণ্ডের তদন্তে অতিসক্রিয় সিবিআই, নজরে রাজ্যের তিন জেলা

চানক্য বাংলা ওয়েব ডেস্ক:

গোরু পাচারকাণ্ডের তদন্তে নেমে একের পর এক চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে আসছে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দাদের হাতে। ইতিমধ্যেই কলকাতা ও দিল্লিতে একযোগে তদন্ত শুরু করেছেন তদন্তকারীরা। গোরুপাচার চক্রের মূল পাণ্ডা এনামুল হককে দিল্লি থেকে গ্রেফতার করেছে সিবিআই। তাকে জেরা করে বহু তথ্য সামনে এসেছে। এখন গোয়েন্দা আধিকারিকদের নজরে রয়েছে রাজ্যের তিনটি জেলা।

সিবিআইয়ের তদন্তে উঠে এসেছে, দক্ষিণ ২৪ পরগনার বসিরহাট, মালদা ও মুর্শিদাবাদ—এই তিনটি জেলার নাম। এই জেলাগুলি থেকেই মূলত অপরাধ সংগঠিত হয়, রমরমিয়ে চলে গোরু পাচারের কারবার। জানা গিয়েছে, এই তিন জেলাতেই পৌঁছে গিয়েছে গোয়েন্দা আধিকারিকের দল।

অন্যদিকে, গোরুপাচারকাণ্ডে ধৃত এলামুল হককে জেরা করে নতুন চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এসেছে সিবিআইয়ের হাতে। সীমান্ত দিয়ে গোরুগুলি কিভাবে পাচার হত, এর সঙ্গে আর কারা জড়িত, সে ব্যপারে মুখ খুলেছে এনামুল। জানা গিয়েছে, বিএসএফ বা কাস্টমসের হাতে ধরা পড়া গোরুগুলিকে প্রথমে কেনা হত। তারপর সেগুলিকে সাত গুণ বেশি দামে পাচার করা হত। গোরুগুলির গায়ে বেআইনি সিন্ডিকেট স্ট্যাম্প লাগিয়ে সীমান্ত দিয়ে পাচারের কাজ চলত। সম্প্রতি এনামুলকে জেরা করে বসিরহাটের এক ব্যবসায়ীর খোঁজ পেয়েছে সিবিআই। তাঁকে নজরবন্দি করা হয়েছে। এছাড়া দিল্লিতেও কলকাতার এক ব্যবসায়ীকে নজরবন্দি করে রেখেছে সিবিআই। আজ, শনিবার এনামুলকে ট্রানজিট রিমান্ডে দিল্লি থেকে কলকাতায় নিয়ে আসার কথা রয়েছে গোয়েন্দা আধিকারিকদের।