• chanakyabangla

গেরুয়া বাহিনীকে নবান্ন-এর ধারে-কাছে ঘেঁষতে দেওয়া হবে না! ত্রিস্তরীয় নিরাপত্তা বলয় প্রশাসনের


গেরুয়া বাহিনীকে নবান্ন-এর ধারে-কাছে ঘেঁষতে দেওয়া হবে না! ত্রিস্তরীয় নিরাপত্তা বলয় প্রশাসনের

চানক্য বাংলা ওয়েব ডেস্ক:

আজ, বৃহস্পতিবার বন্ধ নবান্নেই অভিযান করতে চলেছে গেরুয়া বাহিনী। তবে গেরুয়া বাহিনীকে নবান্ন-এর ধারে-কাছে ঘেঁষতে দেওয়া হবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশাসন। শুধু মুখে বলা নয়, বিজেপির মিছিলকে আটকাতে নবান্ন-এর অদূরে ত্রিস্তরীয় নিরাপত্তা বলয়ের ব্যবস্থা করেছে রাজ্য প্রশাসন।

জানা গিয়েছে, কলকাতা ও হাওড়া মিলিয়ে চার জায়গায় জমায়েত হবে বিজেপি সমর্থকদের। তারপর চারদিক দিয়ে নবান্ন অভিযান চালানো হবে। বেলা ১২টা নাগাদ মিছিল শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। যদিও সকাল ১০টা থেকেই রাজ্যের বিভিন্ন জেলা থেকে বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা মিছিল করে নির্দিষ্ট স্থানের দিকে রওনা শুরু করেছে। তবে সক্রিয় পুলিশও। বিজেপির গেরিলা বাহিনীকে ঠেকাতে এদিন সকাল থেকেই হাওড়া, কলকাতার পাশাপাশি সংলগ্ন অন্যান্য জেলাগুলিরও মূল মোড়ে পুলিশ পিকেট বসেছে। নামানো হয়েছে কমব্যাট ফোর্সও।

পুলিশ সূত্রে খবর, ইতিমধ্যে নিরাপত্তার ঘেরাটোপে নবান্ন। নবান্নের দিকে যাওয়ার পথগুলিতে পুলিশি ব্যারিকেড দেওয়া হয়েছে। আন্দুল রোডে প্রবল যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। বন্ধ করা হয়েছে রেড রোডের একাংশ। হাওড়া সেতু, ফোরশোর রোডেও বিশাল পুলিশ বাহিনী মোতায়েন রয়েছে। হাওড়া সেতু, দ্বিতীয় হুগলী সেতু, ফরশোর রোডে তৈরি রাখা হয়েছে কাঁদানে গ্যাস ও জল কামান। টোলপ্লাজা গুলোতে দেওয়া হয়েছে পুলিশকে ভয় পেতে নারাজ বিজেপি বাহিনী। পুলিশি বাধা উপেক্ষা করেই নবান্ন অভিযানে প্রস্তুত তারা। বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ-র কথায়, 'পুলিশ বাধা দিলেই লড়াই হবে।' অন্যদিকে সায়ন্তন বসু বলেন, 'যেখানেই পুলিস সেখানেই বিক্ষোভ।'