• chanakyabangla

ছোটলোকদের দিয়ে বাজে কথা বলাচ্ছে”, ফিরহাদ হাকিমের সঙ্গে কি মমতাকেও ঠুকলেন শুভেন্দু অধিকারী


“ছোটলোকদের দিয়ে বাজে কথা বলাচ্ছে”, ফিরহাদ হাকিমের সঙ্গে কি মমতাকেও ঠুকলেন শুভেন্দু অধিকারী

চানক্য বাংলা ওয়েব ডেস্ক:

“ছোটলোকদের দিয়ে বাজে কথা বলাচ্ছে”; এবার ফিরহাদ হাকিমকে পাল্টা দিলেন শুভেন্দু অধিকারী। শুধু তাঁকেই নয়; ফিরহাদ হাকিমের সঙ্গে কি তৃণমূল নেত্রী মমতাকেও ঠুকলেন শুভেন্দু অধিকারী? রাজ্য রাজনীতিতে; শুরু হয়েছে জোর জল্পনা। নিজের বিধানসভা এলাকা নন্দীগ্রামে; বিস্ফোরক শুভেন্দু অধিকারী। তাঁর বক্তব্য নিয়ে এবার ফের; জোর জল্পনা তৈরি হল। শনিবার পূর্ব মেদিনীপুর জেলার নন্দীগ্রামে এক বিজয়া সম্মেলনী অনুষ্ঠানে; হাজির হয়েছিলেন শুভেন্দু। সেখানেই চরম তাছিল্যের সঙ্গে নিজের বক্তব্যে, তিনি পরিষ্কার বলেন; “আমি প্যারাসুটে নামিনি এবং লিফটেও উঠিনি। ছোটলোকদের দিয়ে বাজে কথা বলিয়ে; ভেবেছে আমি উত্তর দেব। কুকুর পায়ে কামড়ালে; মানুষ কখনো কুকুরের পায়ে কামড়ায় না”। ফিরহাদের পাশাপাশি কি মমতাকেও একহাত নিলেন শুভেন্দু? উঠেছে প্রশ্ন।


সম্প্রতি কোলাঘাট ও নিউ দিঘার অনুষ্ঠানে; শুভেন্দু অধিকারীর বক্তব্য ঘিরে রাজনৈতিক মহলে; জোরদার জল্পনা ছড়ায়। শুক্রবার, শুভেন্দুর সেই মন্তব্যের জবাব; দেন ফিরহাদ হাকিম। দিন কয়েক আগে দিঘায় এক অনুষ্ঠানে ভাষণ দিতে গিয়ে; নাম না করে নিজের দলকেই ঠোকেন শুভেন্দু। তিনি বলেন, “একক শক্তি দিয়ে; কোনও কাজ কেউ করতে পারেন না”। শুভেন্দু আরও বলেছিলেন; “স্বামী বিবেকানন্দ বলেছিলেন; আমি, আমি করা হল সর্বনাশের মূল”। এরপরই দলের ভিতরে জল্পনা ছড়ায়; তবে কি মমতাকে সরাসরি আক্রামণ করলেন শুভেন্দু? সেই নিয়ে শুরু হয়; জোর রাজনৈতিক বিতর্ক।


দলের তরফে প্রকাশ্যে এব্যাপারে শুভেন্দুকে; কেউ কিছু না বললেও; এবার তাঁকে নাম না করে হুঁশিয়ারি দেন; তৃণমূলের অন্যতম শীর্ষ নেতা তথা রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। শুভেন্দুর সাম্প্রতিক মন্তব্য নিয়ে; ফিরহাদকে প্রশ্ন করেছিলেন সাংবাদিকরা। তারই উত্তরে, বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কবিতার লাইন তুলে ধরে; ফিরহাদ পরোক্ষে বেঁধেন শুভেন্দুকে। ফিরহাদ হাকিম বলেন; ‘‘পথ ভাবে আমি দেব, রথ ভাবে আমি; মূর্তি ভাবে আমি দেব, হাসে অন্তর্যামী’’। এই ভাষাতেই, পূর্ব মেদিনীপুরের মাটিতে দাঁড়িয়ে; শুভেন্দু অধিকারীকে চরম কটাক্ষ করেন; ফিরহাদ হাকিম। এদিন ফের পাল্টা দিলেন শুভেন্দু অধিকারী। ‘কুকুর’ ও ‘ছোটলোক’ বলে কাকে ঠুকলেন শুভেন্দু? এটাই এখন বড় প্রশ্ন।