• chanakyabangla

থাকছে না চিয়ারলিডার। দেখা যাবে না কোনও দর্শককে। এবারের আইপিএল একেবারে জৌলুসহীন


থাকছে না চিয়ারলিডার। দেখা যাবে না কোনও দর্শককে। এবারের আইপিএল একেবারে জৌলুসহীন।

চানক্য বাংলা ওয়েব ডেস্ক:

তবে ২২ গজে ব্যাট–বলের লড়াই শুরু হলেই উন্মাদনা ফিরে আসবে বলে আশাবাদী আইপিএল কর্তৃপক্ষ। 

এমনকি আইপিএলের ইতিহাসে এই প্রথম কোনও উদ্বোধনী অনুষ্ঠান থাকছে না। মহামারী উদ্বেগের মধ্যে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান বাতিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি। 

আগামী শনিবার আইপিএলের উদ্বোধন। প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি রোহিত শর্মার মুম্বই ইন্ডিয়ান্স এবং মহেন্দ্র সিং ধোনির চেন্নাই সুপার কিংস। বোর্ড প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলি এবং আইপিএল চেয়ারম্যান ব্রিজেশ প্যাটেল আছেন আমিরশাহীতে। হয়তো টসের আগে তাঁরাই ঘোষণা করে দেবেন, উদ্বোধন হয়ে গেল। কোনও অনুষ্ঠান তো হবেই না, এমনকি আট দলের অধিনায়কদের রাখার কথা হচ্ছিল। সেটাও শেষ পর্যন্ত হবে কি না, নিশ্চয়তা নেই। সৌরভেরা মনে করছেন, কোনও কিছুরই দরকার নেই। 

সচিব জয় শাহের উদ্বোধনে থাকা নিয়ে সংশয় দেখা গিয়েছিল। তিনি দেশে ফিরে এসেছেন, বাবা অমিত শাহের অসুস্থতার কারণে। সচিবের এমনভাবে দেশে ফিরে আসা নিয়ে কিছুটা উদ্বেগ তৈরি হয়েছে যে, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ডাক্তারি রিপোর্টে কি গুরুতর কিছুর ইঙ্গিত মিলেছে? না হলে তড়িঘড়ি দেশেই বা ফিরে আসবেন কেন পুত্র জয়? তবে শনিবার উদ্বোধনের আগে তিনি ফের আমিরশাহী পৌঁছে গেলেও অবাক হওয়ার নেই। আইপিএলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অতীতে শাহরুখ খান, সলমন খান থেকে দীপিকা পাড়ুকোন, ক্যাটরিনা কাইফ, অনেকেই মঞ্চ মাতিয়ে গিয়েছেন। এবারে সেই সম্ভাবনা নেই। তবে টিম মালিক হিসেবে শাহরুখ খান বা প্রীতি জিন্টা উপস্থিত থাকেন কি না, সেটা অবশ্য দেখার। কোভিড–১৯ পরিস্থিতিতে মাঠের মধ্যে খুবই কম সংখ্যক ব্যক্তিদের রাখা হচ্ছে। 

আবুধাবি, দুবাই ও শারজায় ক্লোজড ডোর ম্যাচ খেলতে হবে বিরাট–রোহিত–ধোনিদের। তবে টুর্নামেন্টের পরেরদিকে ৩০ শতাংশ দর্শক ঢোকার অনুমতি মিলতে পারে।