• chanakyabangla

দিনহাটায় উরছে , শুভেন্দু অধিকারীর ব্যানার, রাজনৈতিক মহলে উত্তেজনা তুঙ্গে।


দিনহাটায় উরছে , শুভেন্দু অধিকারীর শুভেচ্ছা বার্তার ব্যানার, রাজনৈতিক মহলে উত্তেজনা তুঙ্গে।

চানক্য বাংলা ওয়েব ডেস্ক: রাজ্যে পরিবর্তনের হাওয়া সিঙ্গুর দিয়ে চালু হলো ও, তাতে ধার দেয় নন্দীগ্রাম আন্দোলন, এবং অন্যতম কাণ্ডারী ছিলেন ঘরের ছেলে, জেলার ছেলে, বিয়ে না করে নিজের জীবন মানুষের জন্য উৎসর্গ করা, অধিকারী পরিবারের ছেলে শুভেন্দু অধিকারী, এবং রাজ্যে পরিবর্তন মমতা ব্যানার্জি হাত ধরে হলেও, মেদিনীপুরে পরিবর্তন হয়েছিল অধিকারী পরিবারকে সামনে রেখে মমতা ব্যানার্জির নেতৃত্বে।

গঙ্গা দিয়ে অনেক জল প্রবাহ হয়েছে, শুভেন্দু অধিকারী এমপি থেকে রাজ্য মন্ত্রী হয়েছে মন্ত্রিসভার সদস্য হয়েছেন, এবং ১৯ এর লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যে বিজেপি দ্বিতীয় অবস্থায় এসেছে, এখন দলের সবথেকে যখন দরকারি সেনা হলেন শুভেন্দু অধিকারী, ঠিক সেই শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে আজদলের সম্পর্ক ভালো নেই। শুভেন্দু অধিকারী এর আগে সরাসরি না হলেও পরোক্ষভাবে ববি হাকিম এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সমালোচনা করেছেন, শুধু রাজনৈতিক নয় শুভেন্দু অধিকারী অরাজনৈতিক বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করছেন,এবং সবথেকে উল্লেখযোগ্য ব্যাপার হলো আমরা দাদার সমর্থক বলে মেদিনীপুরের বিভিন্ন জায়গায় এতদিন পোস্টার পড়েছিল, আর সেখানে ছিল শুভেন্দু অধিকারীর ছবি, সেই পোস্টার বা ব্যানার আর শুধু মেদিনীপুরে সীমাবদ্ধ নেই, দিনহাটা শহরের ফুল দিঘিতে উরছে শুভেন্দু অধিকারীর নামে ব্যানার, যেখানে তিনি দিনহাটা বাসি কে, শারদীয় দুর্গোৎসব এবং দীপাবলি সহ ছট পুজোর শুভেচ্ছা বার্তা দিয়েছেন।, এরপর এই নিয়েরাজনৈতিক মহলে বিভিন্ন কানাঘুষা চলছে। শুভেন্দু অধিকারী দল পরিবর্তন নিয়ে, এবং শুধুমাত্র দিনহাটা বাসি কে কেন্দ্র করে তার এই শুভেচ্ছা বার্তা দেখে অনেকেই হতবাক হয়েছেন। কেননা এতদিন এমপি মন্ত্রী থাকার পরও শুভেন্দু অধিকারী দিনহাটা সঙ্গে সেরকম যুক্ত ছিল না। দলের সঙ্গে যখন তার সম্পর্ক ভালো না, ঠিক সেই সময়ই দিনহাটা বাসি কে উল্লেখ করে তার এই শুভেচ্ছা বার্তা অনেক কিছু ইসরা করছেন বলে মনে করা হচ্ছে। (২০১৯ এর এর লোকসভা নির্বাচনে দিনহাটা শহরে বিজেপি কয়েক হাজার ভোটে এগিয়ে ছিলেন)