• chanakyabangla

দুর্গা পূজা, কালী পুজোর পর, লোকাল ট্রেন চলা নিয়েও কলকাতা হাইকোর্টে মামলা


চানক্য বাংলা ওয়েব ডেস্ক:দুর্গা পুজো, কালী পুজোর পর, লোকাল ট্রেন চলা নিয়েও কলকাতা হাইকোর্টে মামলা


দুর্গা পুজো, কালী পুজোর পর; এবার লোকাল ট্রেন চলা নিয়েও কলকাতা হাইকোর্টে মামলা। কালী পুজো, জগদ্ধাত্রী পুজো, কার্তিক পুজো ও রাসপূর্ণিমার কথা মাথায় রেখে; এ বার লোকাল ট্রেন চলাচলের উপর; কলকাতা হাইকোর্টে মামলা দায়ের হল। যদিও এই মামলা, লোকাল ট্রেন পরিষেবা; বন্ধ করে দেওয়ার জন্য নয়। পুজোর দিনগুলিতে শহরতলি থেকে যাতে লোকজন’ বিখ্যাত পুজো মণ্ডপগুলিতে মানুষের ভিড় না করতে পারে; সেই কারণেই এই মামলা করা হয়েছে। মামলাকারী জানান; লোকাল ট্রেন চললে ভিড় জমতে বাধ্য; আর তা থেকে কোভিডের সংক্রমণ ছড়াবেই।


মামলায় আর্জি জানানো হয়েছে; পুজোর দিনগুলিতে বিশেষ বিশেষ এলাকাগুলিতে ও তার আশেপাশের ১০কিমি এলাকার মধ্যে; যেন কোন লোকাল ট্রেন না থামানো হয়। দুর্গাপুজোর ভিড় নিয়ন্ত্রণের জন্য, হাইকোর্টে যিনি আবেদন করেছিলেন; সেই অজয়কুমার দে এই মামলাটি করেছেন। মামলায় বলা হয়েছে; কালী পুজোর সময় বারাসাত; মধ্যমগ্রাম; পান্ডুয়াতে যেমন ভিড় হয়; তেমনি জগদ্ধাত্রী পুজোর সময় চন্দননগরে; কৃষ্ণনগর ও রিষড়ায় ভিড় হয়। কার্তিক পুজোয় ভিড় হয় চুঁচুড়া; বাঁশবেড়িয়া ও কাটোয়াতে।


আবার রাসপূর্ণিমাতে ভিড় হয় শান্তিপুর; নবদ্বীপ ও উলুবেড়িয়াতে। এবার ওই সব পুজোর দিন যদিও ওই সব এলাকায় লোকাল ট্রেন চলে; বা দাঁড়ায় তাহলে দর্শনার্থীদের ভিড় হবেই হবে। তাই মামলাকারী আদালতের কাছে আর্জি জানিয়েছেন; পুজোর দিনগুলিতে ওই সব স্টেশনে ও তার আশেপাশের ১০ কিমি ব্যবধানের মধ্যে কোনও স্টেশনে যাতে লোকাল ট্রেন না দাঁড়ায় তার নির্দেশ দিক আদালত।


কালীপুজোর আগে ১০ নভেম্বর ছুটির মধ্যে হাইকোর্টের বিশেষ বেঞ্চ বসবে। ওই দিন মামলাটির শুনানি হতে পারে। প্রথম পর্যায়ে কালীপুজোর দিন থেকে ভাইফোঁটা পর্যন্ত এই নির্দেশ কার্যকর করার আবেদন জানানো হয়েছে।