• chanakyabangla

নজির সৃষ্টি করে ট্রাম্পের সব নীতি পাল্টে দিতে চান বাইডেন : অবিলম্বে একগুচ্ছ নির্দেশ জারি


নজির সৃষ্টি করে ট্রাম্পের সব নীতি পাল্টে দিতে চান বাইডেন : অবিলম্বে একগুচ্ছ নির্দেশ জারি

চানক্য বাংলা ওয়েব ডেস্ক:

আগামী ২০ জানুয়ারি হোয়াইট হাউসে শপথ নেবেন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বিজয়ী জো বাইডেন। তার পরেই তিনি একগুচ্ছ এক্সিকিউটিভ অর্ডার দিয়ে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নানা পলিসি পাল্টে দেবেন। বাইডেন নিজেই একথা জানিয়েছেন। তাঁর বক্তব্য, ট্রাম্প প্রশাসন যে নীতি নিয়ে চলেছে, তিনি তা আমূল বদলে দিতে চান। তাঁর প্রশাসন সম্পূর্ণ অন্য নীতি নিয়ে চলবে।


বাইডেনের ঘনিষ্ঠরা জানিয়েছেন, নির্বাচনের প্রচারের সময়েই তিনি বলেছেন, প্রেসিডেন্ট হলে প্যারিস ক্লাইমেট অ্যাকর্ডে যোগ দেবেন। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প হু থেকে সরে আসার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন, তাও তিনি বাতিল করে দেবেন। ট্রাম্পের আমলে কয়েকটি মুসলিম প্রধান দেশ থেকে আমেরিকায় আসার ওপরে নিষেধাজ্ঞা ছিল। তিনি সেই নিষেধাজ্ঞাও বাতিল করবেন। যারা শৈশবে বাবা-মায়ের সঙ্গে বে আইনিভাবে আমেরিকায় এসেছিল, তাদের দেশে থাকতে দেবেন। ট্রাম্প বরাবর প্রথা ভেঙে নানা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। কিন্তু বাইডেন প্রচলিত নিয়মকানুন মেনে চলায় বিশ্বাসী। সুতরাং তাঁর আমলে প্রশাসনে বড়সড় পরিবর্তন আসতে চলেছে বলে পর্যবেক্ষকদের ধারণা।


ইতিমধ্যেই কোভিড অতিমহামারী মোকাবিলায় টাস্ক ফোর্স তৈরি করছেন সদ্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়া বাইডেন। আগামী সোমবার তিনি টাস্ক ফোর্সের সদস্যদের নাম ঘোষণা করবেন। তাতে সহ সভাপতির পদে থাকতে পারেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত মার্কিন নাগরিক বিবেক মূর্তি। ৪৩ বছর বয়সী বিবেক কর্নাটক থেকে আমেরিকায় গিয়েছিলেন। ২০১৪ সালে প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা তাঁকে আমেরিকার সার্জেন জেনারেল নিয়োগ করেন।


নির্বাচনে জয়ী হওয়ার পরে শনিবার রাতে বাইডেন ডেলাওয়ারের উইলমিংটন থেকে ভাষণ দেন। তিনি বলেন, “বাইডেন-হ্যারিস কোভিড প্ল্যান কার্যকর করার জন্য আগামী সোমবার আমি কয়েকজন উপদেষ্টার নাম ঘোষণা করব। তাঁদের মধ্যে বিজ্ঞানী ও বিশেষজ্ঞরা থাকবেন। কোভিড মোকাবিলায় তৈরি হবে অ্যাকশন ব্লু প্রিন্ট। কাজ শুরু হবে ২০২১ সালের ২০ জানুয়ারি।” টাস্ক ফোর্সের শীর্ষে কে থাকবেন, তা বাইডেন ঘোষণা করেননি।


শনিবার বাইডেন বলেন, “এবার সময় হয়েছে আমেরিকাকে সুস্থ করে তোলার। আমি প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিচ্ছি ভেদাভেদ বরদাস্ত করা হবে না, বরং সবাইকে এক করার চেষ্টা হবে।” ট্রাম্পের অনুগামীরা যে শত্রু নন, তা আরও একবার নিজের সমর্থকদের সামনে তুলে ধরেন তিনি। বাইডেন বলেন, “ওরা আমাদের শত্রু নন। ওরা আমেরিকাবাসী। তাই আমেরিকায় এই ভেদাভেদের যুগকে এবার এখানেই শেষ করতে হবে।”