• chanakyabangla

ভারতে করোনা ভাইরাসের চরিত্র বদল’, আক্রান্ত রোগীর ময়নাতদন্তের পর দাবি চিকিৎসকের


‘ভারতে করোনা ভাইরাসের চরিত্র বদল’, আক্রান্ত রোগীর ময়নাতদন্তের পর দাবি চিকিৎসকের


ভারতে এই প্রথম করোনা সংক্রমিত মৃত ব্যক্তির দেহের ময়নাতদন্ত হল কর্নাটকে। তাতে চিকিৎসকদের হাতে উঠে এসেছে কিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য। ভারতে কোভিড-১৯ ভাইরাসের চারিত্রিক বৈশিষ্টের বদল দেখা দিয়েছে। অর্থাৎ ইতালিতে বা আমেরিকায় করোনা ভাইরাসের যা চরিত্র, ভারতে তা আলাদা।

সম্প্রতি করো‌না সংক্রমিত ৬২ বছর বয়সি এক মৃত ব্যক্তির ময়নাতদন্ত করা হয়েছে কর্ণাটকে। ১৮ ঘণ্টা পরও তাঁর শরীরে মিলেছে মারণ ভাইরাসের অস্তিত্ব। এমনকি মৃত ব্যক্তির নাসারন্ধ্র ও গলা ভিতরেও কোভিড-১৯ সংক্রমণের চিহ্ন পাওয়া গিয়েছে। তবে ত্বকে ভাইরাসের কোনও অস্তিত্ব মেলেনি। রোগীর রিপোর্টের ছবিতে ধরা পড়েছে, ওই ব্যক্তির ফুসফুসটি চামড়া বলের মতো শক্ত হয়ে গিয়েছে।


জানা গিয়েছে, মৃত ব্যক্তির ময়নাতদন্তটি করেছেন অক্সফোর্ড মেডিক্যাল কলেজের চিকিৎসক ডক্টর দীনেশ রাও। তিনি জানিয়েছেন, করোনা সংক্রমিত ব্যক্তির ফুসফুসের বায়ুথলি ফেটে গিয়েছিল। সেইসঙ্গে জমাট বেঁধে গিয়েছে রক্তনালীগুলিও। ১০ অক্টোবর এক ঘণ্টা ১০ মিনিট ধরে ময়নাতদন্ত করা হয়। ডক্টর রাও বলছেন, ‘কোভিড আক্রান্তদের শরীরে ময়নাতদন্ত করলে রোগের বিস্তার বুঝতে সুবিধা হয়। যেমন, আমেরিকা ও ইতালিতে কোভিড রোগীদের ময়নাতদন্তে যা দেখা গিয়েছে এই পর্যবেক্ষণ তার থেকে অনেক আলাদা। বলাবাহুল্য ভারতে এই ভাইরাসের চরিত্র সম্পূর্ণ আলাদা।’ খুব তাড়াতাড়ি এই ময়নাতদন্তের বিবরণ কোনও জার্নালে প্রকাশ করার পরিকল্পনা করছেন তিনি।

উল্লেখ্য, ওই ব্যক্তি যখন মারা যান তাঁর পরিবারের সদস্যরা কোয়ারান্টাইনে ছিলেন, বলে মৃতদেহ দাবি করেননি, বরং চিকিৎসার কাজে দিতে আগ্রহবোধ করেছেন।