• chanakyabangla

মুখ্যমন্ত্রীর পাশে থেকে অনুপম হাজরার বেফাঁস মন্তব্যের বিরোধিতায় সরব অধীর চৌধুরী


মুখ্যমন্ত্রীর পাশে থেকে অনুপম হাজরার বেফাঁস মন্তব্যের বিরোধিতায় সরব অধীর চৌধুরী

চানক্য বাংলা ওয়েব ডেস্ক:

রাজনৈতিক মতবিরোধকে দূরে রেখে রাজ্য প্রশাসনের প্রধানকে সম্মান দিয়ে বিজেপির বিরুদ্ধে সরব হলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে নিয়ে বিজেপির সর্বভারতীয় যুগ্ম সম্পাদক অনুপম হাজরার কুরুচিকর মন্তব্যের তীব্র বিরোধিতা করেন তিনি।

মঙ্গলবার তিনি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশে দাঁড়িয়ে একটি ট্যুইট করেন। তৃণমূলের বহিষ্কৃত বোলপুরের প্রাক্তন সাংসদ তথা বিজেপির নেতা অনুপম হাজরাকে কটাক্ষ করে অধীরবাবু ট্যুইটারে লেখেন, ‘প্রাক্তন তৃণমূল সাংসদ আগে দিদিকে ‘দেবী’ বলতেন। তাঁর দয়াতেই সাংসদ হয়েছিলেন।’ একইসঙ্গে বিজেপি পার্টিকে ক্ষমা চাওয়ার কথাও বলেন তিনি। বাংলায় যে এসব চলবে না, তা সাফ জানিয়ে ট্যুইটারে প্রদেশ সভাপতি লেখেন, ‘মমতা বন্দ্যোপাধায়ের বিরুদ্ধে আমার হাজারও অভিযোগ আছে ও থাকবে, অভিযোগ ব্যক্ত করার অধিকার আমার আছে। কিন্তু তাঁর বিরুদ্ধে অশালীন মন্তব্য করার কোনও অধিকার নেই। একজন মহিলার প্রতি বিজেপি নেতার অশালীন মন্তব্য বাংলার তথা ভারতীয় সংস্কৃতির অপমান বলে মনে করি।’

উল্লেখ্য, সম্প্রতি বিজেপির সর্বভারতীয় যুগ্ম সম্পাদকের পদ পেয়ে রবিবার বারুইপুর সাংগঠনিক জেলা কমিটির একটি সভায় যোগ দেন অনুপম হাজরা। অভিযোগ উঠেছে, সেখানে কোভিড বিধি অমান্য করে বাড়তি জমায়েত করে বিজেপি। অধিকাংশ বিজেপি কর্মীর মুখেই মাস্ক ছিল না। এমনকি অনুপম হাজরার মুখেও ছিল না মাস্ক। এপ্রসঙ্গে করোনাবিধি নিয়ে তাঁকে প্রশ্ন করা হলে বেফাঁস মন্তব্য করে বসেন অনুপম। বলেন, ‘করোনা হলে প্রথমে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে গিয়ে জড়িয়ে ধরব!’ এরপরই সমালোচনার ঝড় ওঠে রাজনৈতিক মহলে। শিলিগুড়ি থানায় অনুপমের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করে তৃণমূল উদ্বাস্তু সেল। যদিও দমেননি অনুপম। পাল্টা মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা করার হুঁশিয়ারি দেন তিনি।