• chanakyabangla

যৌন পেশা কোনও অপরাধ নয়, রায় বম্বে হাইকোর্টের


যৌন পেশা কোনও অপরাধ নয়, রায় বম্বে হাইকোর্টের

যৌন পেশা কোনও অপরাধ নয়, রায় বম্বে হাইকোর্টের

চানক্য বাংলা ওয়েব ডেস্ক:

যৌন পেশা আইনের চোখে কোনও অপরাধ নয়। এই পেশায় যোগ দেওয়া কাউকেই শাস্তি দিতে পারে না আইন। সম্প্রতি একটি মামলার শুনানিতে এমনই রায় দিল বম্বে হাইকোর্ট। এমনকি মহারাষ্ট্রের হোমে বন্দি তিন মহিলা যৌনকর্মীকে মুক্তি দেওয়ার নির্দেশ দিয়ে বম্বে হাইকোর্টের বিচারপতি পৃথ্বীরাজ কে চাভান জানিয়েছেন, প্রাপ্তবয়স্ক মহিলার নিজের পেশা বেছে নেওয়ার অধিকার আছে। অনৈতিক পাচার রোধ আইনে যৌন পেশায় যোগ দেওয়ার জন্য কারও বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা বা কাউকে শাস্তি দেওয়ার ব্যবস্থা নেই। তবে যৌন ব্যবসার কারণে কাউকে নির্যাতন করা হলে বা প্রকাশ্য স্থানে যৌন ব্যবসা সংক্রান্ত প্রলোভন দেখানো হলে তা শাস্তিযোগ্য অপরাধ বলেও জানিয়েছেন বিচারপতি।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি মহারাষ্ট্রের মালাড এলাকায় একটি গেস্ট হাউসে যৌন চক্রের খবর পেয়ে ফাঁদ পেতে তিন মহিলা ও নিজামুদ্দিন খান নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে পুলিশ। আদালতে শুনানির সময়ে জানা যায়, ওই তিন মহিলা 'বেদিয়া' সম্প্রদায়ের। ওই সম্প্রদায়ে মহিলাদের নির্দিষ্ট বয়সের পরে যৌন পেশায় যোগ দিতে পাঠানোর রেওয়াজ প্রচলিত। ম্যাজিস্ট্রেট আদালত জানায়, এ ক্ষেত্রে বাবা-মায়েরাই মেয়েকে যৌন পেশায় যোগ দেওয়ার অনুমতি দিচ্ছেন। তাই মায়ের হাতে মেয়ের দায়িত্ব দেওয়া নিরাপদ নয়। ওই তিন মহিলাকে এক বছর মহারাষ্ট্রের একটি হোমে আটক রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এরপর ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের রায়কে চ্যালেঞ্জ করে দায়রা আদালতে মামলা উঠলে সেখানেও নিম্ন আদালতের রায় বহাল রাখে। কিন্তু শনিবার বম্বে হাইকোর্ট ওই তিন মহিলার বিরুদ্ধে মামলা খারিজ করে দেয়। ওই তিন মহিলা প্রাপ্তবয়স্ক এবং এঁদের বিরুদ্ধে প্রকাশ্য স্থানে যৌন ব্যবসা সংক্রান্ত প্রলোভন দেখানো বা যৌনপল্লি চালানোর কোনও প্রমাণও নেই। ফলে তাঁদের হোমে আটক রাখা যাবে না জানিয়ে হাইকোর্টের নির্দেশ, এঁদের মাঝে যারা দালাল হিসেবে নিযুক্ত ছিল তাদের খুঁজে বের করুক পুলিশ।