• chanakyabangla

লোকেশ রাহুলের কাছে অসহায় আত্মসমর্পণ করে বসল বিরাট কোহলির আরসিবি।


চানক্য বাংলা ওয়েব ডেস্ক:

লোকেশ রাহুলের কাছে অসহায় আত্মসমর্পণ করে বসল বিরাট কোহলির আরসিবি। কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব অধিনায়ক দুরন্ত শতরান করলেন। আইপিএলে দুটি শতরান হয়ে গেল রাহুলের। এদিন করলেন ৬৯ বলে অপরাজিত ১৩২। ইনিংসে ১৪টি চারের পাশাপাশি রয়েছে সাতটি ছয়। ৮০–র ঘরে যখন রয়েছেন, তখন দু’‌বার রাহুলের ক্যাচ ফস্কালেন আরসিবি অধিনায়ক বিরাট স্বয়ং। ওটাই ম্যাচে বড় পার্থক্য গড়ে দিল। ৯৭ রানে ম্যাচ জিতে নিল পাঞ্জাব। 

টস জিতে শুরুতে পাঞ্জাবকে ব্যাট করতে পাঠিয়েছিল আরসিবি। ২০ ওভারে মাত্র ৩ উইকেট হারিয়ে ২০৬ তুলে ফেলে পাঞ্জাব। গোটা ম্যাচই রাহুলময়। মায়াঙ্ক আগরওয়াল, নিকোলাস পুরান, করুণ নায়াররা শুধু রাহুলকে সঙ্গ দিয়েছেন মাত্র। আরসিবি বোলিং সম্পর্কে যত কম বলা যায়, ততই ভাল। চাহাল ছাড়া বাকিরা ছন্নছাড়া। স্টেন ৪ ওভারে দিলেন ৫৭। উমেশ যাদব, নভদীপ সাইনি, শিবম দুবেরা ছাপ ফেলতে পারেননি।

২০৭ রানের টার্গেট নিয়ে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই বেকায়দায় আরসিবি। নিয়মিত ব্যবধানে উইকেট পড়তে থাকায় রানরেট বাড়েনি। প্রথম ম্যাচের নায়ক দেবদত্ত পাডিক্কাল (‌১)‌ এদিন ব্যর্থ। বিরাট কোহলি (‌১)‌ দ্বিতীয় ম্যাচেও রান পেলেন না। অ্যারন ফিঞ্চ, এবিডি’‌ভিলিয়ার্স খেলতে পারেননি। বেঙ্গালুরুকে শুরুতেই ধাক্কা দেন শেলডন কটরেল। তুলে নেন পাডিক্কাল ও কোহলিকে। রবি বিষনোই পেলেন ৩ উইকেট। মুরুগান অশ্বিনও পেলেন ৩টি। নিয়ন্ত্রিত বোলিং করে গেল পাঞ্জাব। মাত্র ১৭ ওভারেই ১০৯ রানে থেমে গেল আরসিবি। 

প্রথম ম্যাচ জিতলেও দ্বিতীয় ম্যাচে মুখ থুবড়ে পড়ল আরসিবি। আর দিল্লির কাছে সুপার ওভারে হারলেও দ্বিতীয় ম্যাচেই ঘুরে দাঁড়ালেন লোকেশ রাহুলরা।