• chanakyabangla

সোশ্যাল মিডিয়ায় মিথ্যে রটাচ্ছে, মানসিক সন্ত্রাস চালাচ্ছে বিজেপি! মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়


সোশ্যাল মিডিয়ায় মিথ্যে রটাচ্ছে, মানসিক সন্ত্রাস চালাচ্ছে বিজেপি! নাম না করে উত্তরবঙ্গের প্রশাসনিক বৈঠক থেকে তোপ মমতার

চানক্য বাংলা ওয়েব ডেস্ক:

সোশ্যাল মিডিয়ায় মিথ্যে রটিয়ে মানসিক সন্ত্রাস চালানো হচ্ছে। এটা শারীরিক সন্ত্রাসের থেকেও ভয়ঙ্কর। বুধবার উত্তরবঙ্গের প্রশাসনিক বৈঠক থেকে নাম না করে বিজেপিকে এই ভাষাতেই বিঁধলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একইসঙ্গে ধর্মীয় ভেদাভেদের অভিযোগ তুলে গেরুয়া শিবিরকে একহাত নেন তিনি।

জানা গিয়েছে, এদিন উত্তরকন্যা-য় জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার, দার্জিলিং এবং কালিম্পং জেলার দ্বিতীয় পর্যায়ের প্রশাসনিক পর্যালোচনা বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা। সেই বৈঠক থেকেই বিজেপির বিরুদ্ধে কুৎসা রটানোর অভিযোগ তুলে তিনি বলেন, 'উত্তরবঙ্গজুড়ে যা কাজ হয়েছে তা কখনও হয়নি। তবু দুঃখ, কেউ কেউ বলে কোনও কাজ হয়নি। যারা একথা বলে তারা শুধু নিজেদের স্বার্থ বোঝে। যারা আইনশৃঙ্খলা নিয়ে প্রশ্ন তোলে তারা সবচেয়ে বড় গুন্ডা। হাজারটার মধ্যে একটা ভুল হয়ে গেলেই নৃত্য করবে। টাকা থাকলে মিথ্যে খবর করানো যায়। সোশ্যাল মিডিয়ায় মিথ্যে রটাচ্ছে। রাজনীতি মানে মিথ্যে কথা বলা নয়। রাজনীতি মানে দায়বদ্ধতা।' এব্যাপারে প্রশাসনিক আধিকারিকদের নজরদারি করার নির্দেশ দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, 'বিডিও, আইসি, এসপিরা সোশ্যাল মিডিয়ায় নজর রাখুন। ৫০ হাজার হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ টাকা দিয়ে তৈরি করেছে। আর দাঙ্গা বাধাচ্ছে। দিদি একা দেখবে আর কেউ দেখবে না তা হবে না। মানসিক সন্ত্রাস হচ্ছে। এটা শারীরিক সন্ত্রাসের থেকেও ভয়ংকর। রুখতে হবে।'

এদিন মমতা ধর্মীয় ভেদাভেদের অভিযোগেরও জবাব দেন গেরুয়া শিবিরকে। তাঁর কথায়, 'ধর্ম আমরাও মানি। সব ধর্মকেই আমরা ভালবাসি।' এপ্রসঙ্গে উত্তরপ্রদেশে 'রামপুজো হলেও দুর্গাপুজো না করার বিধান' প্রসঙ্গে যোগী আদিত্যনাথকে বিঁধে মমতা সাফ জানান, 'কোভিড পরিস্থিতিতেও পুজো হবে। সমস্ত ধর্মীয় অনুষ্ঠানই উদযাপন করা হবে। কিন্তু তা স্বাস্থ্যবিধি মেনে।' পুজোর দিনগুলিতে কোনওভাবেই যাতে বড় জমায়েত না হয় সেদিকে নজর রাখার জন্য পুলিশকে নির্দেশ দেন তিনি।