• চাণক্য বাংলা

Breaking News: রিয়া চক্রবর্তীকে গ্রেপ্তার করল এনসিবি

চাণক্য বাংলা নিউজ ডেস্ক


অনলাইন ডেস্ক: টানা তিনদিন জেরার পর রিয়া চক্রবর্তীকে গ্রেপ্তার করল নারকোটিকস কন্ট্রোল ব্যুরো। ৯ সেপ্টেম্বর ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আদালতে হাজিরা দেবেন রিয়া। সুশান্তের বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তী সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর মামলায় মূল অভিযুক্ত। সুশান্তের বাবার অভিযোগের ভিত্তিতে অভিনেতার অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনার তদন্ত শুরু হয়। বিকেল ৪টে নাগাদ এই গ্রেপ্তারির অনুষ্ঠানিক ঘোষণা করা হবে। রিয়ার মেডিকেল পরীক্ষাও করা হবে বলে জানা গিয়েছে। এই মুহূর্তে এনসিবি দপ্তরের বাইরে কড়া নিরাপত্তা রাখা হয়েছে। রিয়ার কোভিড পরীক্ষাও করা হবে।

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর ঘটনায় ইতিমধ্যেই মাদক যোগ সামনে এসেছে। রিয়ার ভাই শৌভিক চক্রবর্তী, সুশান্তের হাউজ ম্যানেজার স্যামুয়েল মিরান্ডা, সুশান্তের পরিচারক কেশব সহ মোট নয় জনকে এই মামলার ইতিমধ্যেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে। রিয়া ও তাঁর ভাই শৌভিক সুশান্তকে ড্রাগ দিয়েছিলেন, এমনই চাঞ্চল্যকর অভিযোগ ওঠে। এবার সুশান্তের মৃত্যু মামলায় মাদক যোগে গ্রেপ্তার হলেন খোদ রিয়া চক্রবর্তী। সূত্রের খবর, রিয়া স্বীকার করে নিয়েছেন তিনি গাঁজা ও অন্যান্য ড্রাগ সেবন করেছিলেন। তবে জিজ্ঞাসাবাদে বারবারই বয়ান পালটেছেন রিয়া। জেরায় একাধিক বলিউড তারকার নাম উঠে এসেছে বলে জানা গিয়েছে।

গত তিনদিন ধরে রিয়া এনসিবির বহু প্রশ্নের জবাব দিতে পারেননি। অভিযুক্ত নায়িকার বিরুদ্ধে নারকোটিকস কন্ট্রোল ব্যুরোর হাতে যথেষ্ট প্রমাণ রয়েছে বলে সূত্রের খবর। মেয়ের গ্রেপ্তারির খবর দেওয়া হয়েছে রিয়ার বাবা-মাকে। মাদক যোগ নিয়ে রবিবার থেকে এনসিবি রিয়াকে টানা জেরা করছিল। সোমবার এনসিবির সামনে রিয়া বলেন, আমি যা করেছি, তা সবই সুশান্তের জন্য। তবে তারপরও মঙ্গলবার রিয়াকে জেরার জন্য এনসিবি ডেকে পাঠায়। জিজ্ঞাসাবাদ চলাকালীন দুপুরের দিকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়।

সুশান্তের মৃত্যুর ৮৭ দিনের মাথায় রিয়া গ্রেপ্তার হলেন। গত ১৪ জুন মুম্বইয়ের বান্দ্রার ফ্ল্যাট থেকে সুশান্ত সিংহ রাজপুতের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়। প্রথম দিকে মুম্বই পুলিশের হাতেই তদন্তভার থাকলেও পরে সুপ্রিম কোর্টের সিবিআইকে সুশান্ত রহস্যমৃত্যুর তদন্তভার দেয়। রিয়ার হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট থেকে সুশান্তের মৃত্যুতে মাদকযোগের বিষয়টি সামনে আসে। এরপরই এনসিবি পৃথকভাবে তদন্ত শুরু করে। তারপরই রিয়াকে টানা জেরা করে একাধিক এসেন্সি। মোট ৪টি এসেন্সি রিয়াকে ৮২ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করে। এরপরই আজ দুপুরে তাঁকে গ্রেপ্তার করে এনসিবি।